ঢাকাশুক্রবার , ৪ মার্চ ২০২২
  1. International
  2. অন্যান্য
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. উৎসব
  6. খেলাধুলা
  7. চাকুরী
  8. জাতীয়
  9. দেশজুড়ে
  10. ধর্ম
  11. পরামর্শ
  12. প্রবাস
  13. ফরিদপুর
  14. বিনোদন
  15. বিয়ানীবাজার

পুতিনের পরমাণু অস্ত্রের হুমকি কি বাস্তবসম্মত

Link Copied!

অনেকের ধারণা, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট যেভাবে ইউক্রেন আগ্রাসন পরিকল্পনা সাজিয়েছিলেন, সেভাবে তা এগোয়নি। এ কারণেই শেষ পর্যন্ত নিজেদের পরমাণু অস্ত্রসম্ভারকে ‘বিশেষ সতর্ক’ অবস্থায় রাখার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

ভ্লাদিমির পুতিনের ওই নির্দেশের পর থেকে গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রশ্ন ঘুরে ফিরে সামনে আসছে। আর তা হলো, রাশিয়ার কাছে আসলে কতগুলো পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে এবং এগুলোর ব্যবহার কী পুতিনের জন্য আদৌ বাস্তবসম্মত বিকল্প?

‘পুতিন নিজের পারমাণবিক অস্ত্র এভাবে ব্যবহার করছেন, কারণ তাঁর হাতে এটিই রয়েছে। আর এটি এমন একটি বস্তু, যা একাধারে রহস্যময় ও ভয়ংকর’, বলেন যুক্তরাষ্ট্রের ওহাইয়ো স্টেট ইউনিভার্সিটির মের্শন সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল সিকিউরিটি স্টাডিজের সহযোগী অধ্যাপক ডাকোটা এস রুডসিল।

রাশিয়া ইউক্রেনে যে প্রতিরোধের সম্মুখীন হয়েছে, তা-ও এই সিদ্ধান্তে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে বলে জানান রুডসিল। তিনি আরো বলেন, ‘পুতিন খেলা বদলে দিতে চান। চান অবস্থান পুনরুদ্ধার করতে। তিনি চান তাঁর শত্রুরা বেহাল ও ভীত হোক।’

ইউনিভার্সিটি অব ওয়াটারলুর রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক আলেক্সান্ডার লানোসজকার মতে, পুতিনের এ ঘোষণাকে কিছুটা কৌশলগত ভুল হিসেবেও দেখা যেতে পারে।

‘মনে হচ্ছে, এটি একটি অনিবার্য কৌশল ছিল, যা বেশি আগে প্রয়োগ করা হয়েছে। পুতিনের জন্য এটি সমস্যা হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাঁর ভবিষ্যৎ হুমকিতে আর কাজ না-ও হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্র, ন্যাটো ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন কিন্তু এটি নিয়ে খুব একটা বিচলিত হয়নি। কারণ আমরা যুক্তরাষ্ট্র, ফরাসি বা ব্রিটিশদের পারমাণবিক অস্ত্রবিষয়ক কর্মকাণ্ডে কোনো পরিবর্তন দেখতে পাইনি’, বলেছেন লানোসজকা।

সুবিশাল অস্ত্রাগার

পারমাণবিক অস্ত্র ছাড়াও রুশ প্রতিরক্ষা বহরে রয়েছে প্রচলিত যুদ্ধাস্ত্র, আধুনিক ক্রুজ, স্বল্পপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ও হাইপারসনিক অস্ত্রসহ ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের বিশাল সংগ্রহ।

তার পরও মূলত পারমাণবিক সক্ষমতার কারণেই রাশিয়ার বাহিনীকে সমীহ করে দেখা হয়। ‘রাশিয়ার পারমাণবিক অস্ত্রাগার সুবিশাল। অনুমান করা হয় এতে ১৪ হাজার পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে। তবে এসব অস্ত্রের বেশির ভাগই তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবহারযোগ্য নয়। বাস্তবতা হচ্ছে, রাশিয়ার দুই হাজার ৪০০ কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে, যার বেশির ভাগ আন্ত মহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের সঙ্গে যুক্ত’, বলেছেন লানোসজকা।

অধ্যাপক লানোসজকা আরো বলেন, রাশিয়ার আনুমানিক এক হাজার ৬০০ মোতায়েনকৃত কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে…এই কৌশলগত অস্ত্রের বেশির ভাগই সমুদ্র থেকে নিক্ষেপযোগ্য। তবে অনেকগুলো আকাশ এমনকি স্থলপথে নিক্ষেপ করার উপযোগী।

এই সংগ্রহ রাশিয়াকে বিশ্বের সবচেয়ে বড় পারমাণবিক শক্তিতে পরিণত করেছে। তাদের ঠিক পেছনেই রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এই দুই রাষ্ট্রের কাছেই রয়েছে বৈশ্বিক মোট পারমাণবিক অস্ত্রের প্রায় ৯৩ শতাংশ।

ইউরোপের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে থাকা আনুমানিক দেড় শটিসহ যুক্তরাষ্ট্রের হাতে রয়েছে তিন হাজার ৭৫০টি সক্রিয় ও নিষ্ক্রিয় পারমাণবিক যুদ্ধাস্ত্র।