ঢাকাশুক্রবার , ১৭ ডিসেম্বর ২০২১
  1. International
  2. অন্যান্য
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. উৎসব
  6. খেলাধুলা
  7. চাকুরী
  8. জাতীয়
  9. দেশজুড়ে
  10. ধর্ম
  11. পরামর্শ
  12. প্রবাস
  13. ফরিদপুর
  14. বিনোদন
  15. বিয়ানীবাজার

সৌদির তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশে আরবি ভাষাকেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগ

অনলাইন ডেস্ক রিপোর্ট, দৈনিক ডাক বাংলা ডটকম
ডিসেম্বর ১৭, ২০২১ ৯:৪৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

প্রথমবারের মতো সৌদি আরবের অর্থায়নে ও তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত হতে যাচ্ছে অ্যারাবিক ল্যাঙ্গুয়েজ ইনস্টিটিউট বা আরবি ভাষা শিক্ষাকেন্দ্র। ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয় ঢাকার প্রস্তাবিত ক্যাম্পাসের তিন একর জমিতে তা স্থাপন করা হবে। গত ২ ডিসেম্বর কেরানীগঞ্জের ঘাটারচরে প্রস্তাবিত জমি পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত ঈসা বিন ইউসুফ আল দুহাইলান।

এ সময় সৌদি রাষ্ট্রদূতের সফরসঙ্গী হিসেবে ছিলেন সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত, পুলিশের সাবেক আইজি ড. মো. জাভেদ পাটোয়ারী, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের (পশ্চিম এশিয়া) মহাপরিচালক মো. ইকবাল হোসাইন খান ও ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তারা। এ সময় তাঁদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আহসান উল্লাহ, ট্রেজারার এস এম এহসান কবীর, রেজিস্ট্রার ড. রফিক আল মামুন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর এস এম গাউসুল আজমসহ অন্য কর্মকর্তারা। বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রদূতকে নকশিকাঁথা উপহার দেওয়া হয়।
ঢাকা শহরের সন্নিকটে কেরানীগঞ্জের ঘাটারচর এলাকার ১৮ একর জায়গায় স্থাপিত হতে যাচ্ছে ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস। এর মধ্যে তিন একর জায়গা সৌদি সরকারের প্রস্তাবিত ‘অ্যারাবিক ল্যাঙ্গুয়েজ ইনস্টিটিউট’-এর জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে বাংলাভাষী মানুষের মধ্যে আরবি ভাষার প্রচার-প্রসারে নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে।

জানা গেছে, সৌদি আরবের জেদ্দার কিং সাউদ ইউনিভার্সিটির তত্ত্বাবধানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আরবি ভাষা শিক্ষাদানে অ্যারাবিক ল্যাঙ্গুয়েজ ইনস্টিটিউট রয়েছে। ২০১৮ সালের অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আলে সৌদের সঙ্গে সাক্ষাত করেন। ওই সময় ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি আরবি ভাষা শিক্ষাকেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাবনা দেওয়া হয়। তারই ধারাবাহিকতায় সৌদি সরকারের সহায়তায় প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ধারাবাহিক প্রক্রিয়া এগিয়ে চলছে।