ঢাকাসোমবার , ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. International
  2. অন্যান্য
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. উৎসব
  6. খেলাধুলা
  7. চাকুরী
  8. জাতীয়
  9. দেশজুড়ে
  10. ধর্ম
  11. পরামর্শ
  12. প্রবাস
  13. ফরিদপুর
  14. বিনোদন
  15. বিয়ানীবাজার
আজকের সর্বশেষ সবখবর

যেকোনো দুঃসময়ে ভারতই সবার আগে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ায়: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি,দৈনিক ডাকবাংলা ডট কম
সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১ ১০:৫০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

রাজধানীর তেজগাঁওয়ের সিএমএসডিতে ভারতের দেওয়া ১০৯টি কার্ডিয়াক অ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক
রাজধানীর তেজগাঁওয়ের সিএমএসডিতে ভারতের দেওয়া ১০৯টি কার্ডিয়াক অ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকছবি: স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়
স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, যেকোনো দুঃসময়ে পার্শ্ববর্তী পরীক্ষিত বন্ধুরাষ্ট্র ভারতই সবার আগে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ায়। সোমবার রাজধানীর তেজগাঁওয়ের সিএমএসডিতে ভারতের দেওয়া ১০৯টি কার্ডিয়াক অ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য দেওয়া হয়।

ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী বাংলাদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের কাছে অ্যাম্বুলেন্সগুলোর চাবি হস্তান্তর করেন। স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সিনিয়র সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ বি এম খুরশীদ আলম ও সিএমএসডির পরিচালক আবু হেনা মোর্শেদ জামান এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন।

ভারতের অ্যাম্বুলেন্স উপহার দেওয়া প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘এই কোভিডকালীন দুঃসময়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নতুন করে ১০৯টি উন্নতমানের কার্ডিয়াক অ্যাম্বুলেন্স উপহার দিয়ে বাংলাদেশের প্রতি ভারতের ভালোবাসার আরেকটি নজির স্থাপন করেছেন। অ্যাম্বুলেন্সগুলো নিঃসন্দেহে দেশের হাসপাতালগুলোর সক্ষমতা আরও বেশি বৃদ্ধি করবে।’

ভারতের দেওয়া অ্যাম্বুলেন্সের পাশাপাশি দেশের হাসপাতাল সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট কর্তৃক ২১টি এবং উপজেলা হেলথ কেয়ারের অপারেশন প্ল্যান থেকে আরও ৬০টি অ্যাম্বুলেন্স কেনা হয়। অনুষ্ঠানে অ্যাম্বুলেন্সগুলো স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জাতীয় বক্ষব্যাধি হাসপাতাল, ঢাকা নর্থ সিটি কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালসহ দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের হাসপাতালগুলোর পরিচালক ও প্রতিনিধিদের কাছে হস্তান্তর করেন।