ঢাকাবুধবার , ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০
  1. International
  2. অন্যান্য
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. উৎসব
  6. খেলাধুলা
  7. চাকুরী
  8. জাতীয়
  9. দেশজুড়ে
  10. ধর্ম
  11. পরামর্শ
  12. প্রবাস
  13. ফরিদপুর
  14. বিনোদন
  15. বিয়ানীবাজার

এ ধরনের উদাহরণ হলিউডে বিরল

অনলাইন ডেস্ক রিপোর্ট, দৈনিক ডাক বাংলা ডটকম
সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০ ৪:৫৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

হলিউডে নারী–পুরুষভেদে সম্মানী নিয়ে বৈষম্যের অভিযোগ বেশ পুরোনো। অনেক অভিনেত্রীর কাছে বিষয়টি নিয়ে বছরের পর বছর ধরে আক্ষেপ ছিল। কিন্তু হলিউড অভিনেত্রী সিয়েনা মিলার মুখোমুখি হলেন অন্য এক অভিজ্ঞতার। তিনি জানান, ‘ব্ল্যাক প্যান্থার’খ্যাত প্রয়াত অভিনেতা চ্যাডউইক বোজম্যান নিজের পারিশ্রমিক কম নিয়ে তাঁর সহশিল্পী সিয়েনাকে প্রাপ্য সম্মানী পেতে সাহায্য করেছিলেন। এ ধরনের উদাহরণ হলিউডে বিরল।

চ্যাডউইক বোজম্যান নিজের পারিশ্রমিক কম নিয়ে তাঁর সহশিল্পী সিয়েনাকে প্রাপ্য সম্মানী পেতে সাহায্য করেছিলেন
চ্যাডউইক বোজম্যান নিজের পারিশ্রমিক কম নিয়ে তাঁর সহশিল্পী সিয়েনাকে প্রাপ্য সম্মানী পেতে সাহায্য করেছিলেনইনস্টাগ্রাম
হলিউডে নারী–পুরুষভেদে সম্মানী নিয়ে বৈষম্যের অভিযোগ বেশ পুরোনো। অনেক অভিনেত্রীর কাছে বিষয়টি নিয়ে বছরের পর বছর ধরে আক্ষেপ ছিল। কিন্তু হলিউড অভিনেত্রী সিয়েনা মিলার মুখোমুখি হলেন অন্য এক অভিজ্ঞতার। তিনি জানান, ‘ব্ল্যাক প্যান্থার’খ্যাত প্রয়াত অভিনেতা চ্যাডউইক বোজম্যান নিজের পারিশ্রমিক কম নিয়ে তাঁর সহশিল্পী সিয়েনাকে প্রাপ্য সম্মানী পেতে সাহায্য করেছিলেন। এ ধরনের উদাহরণ হলিউডে বিরল।
গত আগস্ট মাসে কোলন ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করে মাত্র ৪৩ বছরের বয়সে মারা যান চ্যাডউইক বোজম্যান। এ অভিনেতার জীবনের শেষ দিকের উল্লেখযোগ্য কাজগুলোর মধ্যে একটি হলো ‘টোয়েন্টি ওয়ান ব্রিজেস’। এই থ্রিলার ছবিটি গত বছরের নভেম্বরে মুক্তি পায়। এতে চ্যাডউইক বোজম্যানের সঙ্গে পর্দায় দেখা যায় অভিনেত্রী সিয়েনা মিলারকে।

চ্যাডউইক বোজম্যানের সঙ্গে পর্দায় দেখা যায় অভিনেত্রী সিয়েনা মিলারকে।

ছবিতে চ্যাডউইক ও সিয়েনা—দুজনের অভিনয়ই বেশ প্রশংসিত হয়। এই ছবির শুরুর দিকের স্মৃতি মনে করে সম্প্রতি সিয়েনা বলেন, ‘আমি ছবিতে বেশ পরিশ্রম করে কাজ করেছি। কিন্তু আমি সম্মানী পাচ্ছিলাম অনেক কম। এমনই হয় হলিউডে। নারী শিল্পীরা অনেকের চেয়ে কম সম্মানী পান। কিন্তু পরে আমার প্রাপ্য সম্মানী নিশ্চিত করতে চ্যাডউইক তাঁর সম্মানী কম নেন।’
‘টোয়েন্টি ওয়ান ব্রিজেস’ ছবির অন্যতম একজন প্রযোজকও ছিলেন চ্যাডউইক। তাই বাজেট সমন্বয়ের মধ্য দিয়ে সম্মানী কম–বেশি করার সুযোগ ছিল তাঁর। সিয়েনা বলেন, ‘চ্যাডউইক আমাকে ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। কিন্তু ওই সময় আমি পরিবার ও ক্যারিয়ার—দুটি নিয়েই বেশ ঝামেলায় ছিলাম। আমার মেয়ের স্কুল শুরু হচ্ছিল তখন। তাই আমি বলেছিলাম, “ছবিতে আমার প্রাপ্য সম্মানী পেলে তবেই অভিনয় করব। ” তখন আমি যে পারিশ্রমিক চেয়েছিলাম, এক কথাতেই তা দিতে রাজি হয়ে যান চ্যাডউইক।’

যুক্তরাষ্ট্রের সাউথ ক্যারোলাইনায় জন্মগ্রহণ করেন চ্যাডউইক বসম্যান। মা ছিলেন নার্স। বাবা গৃহসজ্জাসামগ্রীর ব্যবসা করতেন। ওয়াশিংটন ডিসির হাওয়ার্ড ইউনিভার্সিটিতে স্নাতক সম্পন্ন করেন তিনি। চার বছর আগে চ্যাডউইক বসম্যানের কোলন ক্যানসার ধরা পড়লেও কখনো প্রকাশ্যে নিজের রোগ বা চিকিৎসা নিয়ে কিছুই বলেননি হলিউডের এই অভিনেতা। এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন, ‘ব্ল্যাক প্যান্থার’–এর চরিত্রে অভিনয় করার আগে তিনি এই সুযোগের জন্য রীতিমতো প্রার্থনা করতেন, কারণ, এটি কৃষ্ণাঙ্গদের সুপারহিরো। তার আগে তিনি জ্যাকি রবিনসন, জেমস ব্রাউনের মতো বহুল চর্চিত কৃষ্ণাঙ্গ চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

গত আগস্ট মাসে কোলন ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করে মাত্র ৪৩ বছরের বয়সে মারা যান চ্যাডউইক বোজম্যান। এ অভিনেতার জীবনের শেষ দিকের উল্লেখযোগ্য কাজগুলোর মধ্যে একটি হলো ‘টোয়েন্টি ওয়ান ব্রিজেস’। এই থ্রিলার ছবিটি গত বছরের নভেম্বরে মুক্তি পায়। এতে চ্যাডউইক বোজম্যানের সঙ্গে পর্দায় দেখা যায় অভিনেত্রী সিয়েনা মিলারকে।
অভিনয়জগতে আরও আগে যাত্রা হলেও ২০১৩ সালে বেসবল তারকা ‘জ্যাকি রবিনসন’ ছবিটি ছিল তাঁর জ্বলে ওঠা। তখন দর্শকের কাছে তাঁর শক্ত অবস্থান। মার্ভেল সিরিজের ‘ব্ল্যাক প্যান্থার’ ব্লকবাস্টার হিট হয়েছিল। ছবিটি অস্কারে সেরা ছবির মনোনয়নও পেয়েছিল। কমিকস থেকে তৈরি এটিই প্রথম ছবি, যা অস্কারের মনোনয়ন পায়। এ ছাড়াও ‘ক্যাপ্টেন আমেরিকা: সিভিল ওয়ার’, ‘অ্যাভেঞ্জার্স’ সিরিজের কিছু ছবিতেও দেখা গিয়েছে তাঁকে।