ঢাকাবুধবার , ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
  1. International
  2. অন্যান্য
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. উৎসব
  6. খেলাধুলা
  7. চাকুরী
  8. জাতীয়
  9. দেশজুড়ে
  10. ধর্ম
  11. পরামর্শ
  12. প্রবাস
  13. ফরিদপুর
  14. বিনোদন
  15. বিয়ানীবাজার

যুবলীগের কমিটিতে ঢুকতে টাকার প্রস্তাব, যা বললেন ভিপি শামীম

স্টাফ রিপোর্টার, সৈয়দ উবায়দুর রহমান
সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০ ১:৫৭ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ত্যাগের রাজনীতিতে ইতিহাস গোটা পরিবার। জেল-জুলুম আর নির্যাতন ছিল এই পরিবারের নিত্যসঙ্গী। উত্তরাধীকারী সুত্রে সেই রক্তের উত্তরসুরী ভিপি শামীম আহমদ। তিনি সিলেট জেলা যুবলীগের নির্বাচিত সভাপতি। ওয়ান-ইলেভেন এর দু:সময়ে হাল ধরেছিলেন জেলা যুবলীগে। নিজের পরিচ্ছন্ন ও সততার রাজনীতি দিয়ে হৃদয় জয় করে নেন কর্মীদের। জেলা যুবলীগকে রাখেন কলঙ্ক ও বিতর্কমুক্ত। শামীমের অনুসারীরা এই গুনাবলীর জন্য ‘এই যুগের রাজনীতির দরবেশ’ বলেও আখ্যা দিয়ে থাকেন। কেউ কেউ সমকালীন গরীব রাজনীতির ধনী পুরুষ হিসেবেও আখ্যা দিয়ে থাকেন এই রাজনীতিবিদকে।

জেলা যুবলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির ব্যাপারে এখনো কোনো নির্দেশনা আসেনি কেন্দ্রের। এরই মধ্যে কমিটিতে ঢুকার জন্য চলছে জোর লবিং। সেই কমিটিতে তালিকায় নাম রাখার জন্য টাকার প্রস্তাব পাঠালেন ভিপি শামীমকে। সে বিষয়ে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে মঙ্গলবার নিজের টাইম লাইনে একটি প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন তিনি। আর মুহুর্তেই সেই লেখাটি ভাইরাল হয়ে যায়। ভিপি শামীমের এই লেখাটি হুবুহ পাঠকদের স্বার্থে তুলে ধরা হলো।

‘আজ ফোনের মাধ্যমে একটা প্রস্তাব পেলাম। আমার পরিচিত একজন, পরিচিত বললাম এই কারনে তিনি আমাকে ভালভাবে জানেন না। আমাকে ফোন দিয়ে বললেন যে একজন লোক আমার সাথে দেখা করতে চায়। সে সিলেট জেলা যুবলীগের কমিটিতে ঢুকতে চায় । এতে যত টাকা খরচ করতে হয় সে করবে।

যিনি আমাকে প্রস্তাব দিয়েছেন তাকে তেমন কিছু বলা যাবে না। সর্ম্পক টা একটু অন্যরকম এবং সিলেটেই তার সাথে আমার পরিচয়। শুধু বললাম- যে তোমাকে প্রস্তাব টা দিয়েছে সে কোনদিন জেলা কমিটিতে ডুকতে পারবেনা । এদের মতো টাকা ওয়ালাদের ————- করা উচিত। মিডিয়াকারি ( পরিচিতজন)কে সরাসরি কিছু বললাম না।
আমি তাকে বললাম সে একজন নষ্ট মানুষ। এদের মতো লোক সমাজটাকে নষ্ট করছে। মানুষ নড়ে চড়েও করতে পারছেনা ১২ আর এ ছেলেটি ঘরে বসে করতে চাচ্ছে ১৩। যে আমাকে বলেছে তার প্রতিও মনটা খারাপ হয়ে গেলো। যে আমাকে প্রস্তাব দিয়েছে তার দোষ আমি মনে করিনা।
সমাজের অধ:পতন,নৈতিকতার স্খলন এর কারনে আমাকে প্রস্তাব দিতে সাহস পেয়েছে।
আমাদের( আমার ও যুবলীগের সেক্রেটারীর) নাম ভাঙ্গিয়ে কেউ যদি কারো কাছে টাকা চায় তাহলে সাথে সাথে তাকে আটকিয়ে আমাদের খবর দিবেন ।
আমি সবার কাছে অনুরুধ করছি – কাজ করুন,নিজেকে গড়ে তুলুন। কাজের মূল্যায়ন হয় । এটা বৃথা যায় না। এটা পরীক্ষিত । কাজ না করে ঘরে বসে টাকা দিয়ে নেতা হবেন সে দিন অন্তত আমাদের কাছে নেই।আমি জীবনে কাউকে টাকা দিয়ে ভোট কেনার চেষ্টা করিনী, নেতা হওয়ার জন্য কাউকে টাকা দেইনী, দেওয়ার চেষ্টা করিনী। কাজের মূল্যায়ন আল্লাহ করেন সেটা মনে প্রানে বিশ্বাস করি।
তাই বলি দলকে মনপ্রান দিয়ে
ভালবাসুন । ধৈর্য ধরুন, দল আপনাকে মূল্যায়ন করবে। এটা কখনও বৃথা যায়না। সর্বশেষে বলি কেউ মানুষের ঈমান খরিদ করার চেষ্টা করবেন না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সততা ও নিষ্টাকে সাহায্য করুন। তিনি সৎ আছেন বিধায় দেশ আজ এভাবে এগুচ্ছে।
আল্লাহ সবাইকে হেদায়েত করুন।’